চাওয়া

কোলাহল আমার ভালো লাগেনি কখনো,
জন-মানবহীন দিগন্ত জুরা খোলা প্রান্তে হেটে যেতে যেতে আমি আমার প্রভুর বিশালত্ব ঘোষনা করব ।
দৃষ্টির প্রতিটি প্রান্তে যে প্রভুর মহিমা ,
আমি তা দেখে সিজদায় অবনত হব ।

হয়ত খানিকটা সময় বসে জীবনের সব গুনাহ,র জন্য বিনিত হয়ে
আমার রবের নিকট আমি অশ্রু সিক্ত হয়ে ক্ষমা চেয়ে নিব ।

হয়ত আরো কাছাকাছি আসার তিব্র আকাঙ্ক্ষা নিয়েই
আকাশ প্রান্তে চেয়ে চেয়ে চলে যাব আরো অনেক দূর ।

যেখানে নির্জনতা , যেখানে আমি , যেখানে আপনি
আমিতো যেতেই চাইব সেখানে বারে বার
অনেক কথা বলার বাকি র‍য়ে গেছে যে এখনো হে দয়াময় অপার ।

সপ্নে দেখা সোনালী দিন – ২

 

একদিন আমি স্থায়ীভাবে আমার গ্রামে চলে যাব । প্রথমেই আমি আমাকে সাজাব আমার মত করে ,একজন ভাল মানুষ হিসেবে , একজন ভালো মুসলিম হিসেবে ।

সবুজের মাঝে প্রতিদিন আমি হেঁটে যাব দিগন্তজুড়া প্রান্তরে , আকাশের দিকে চেয়ে বিরানভূমিতে আমি বাতাসের গন্ধ , মাটির গন্ধ শুঁকে শুঁকে চলে যাব অনেকদূর ।

মাঠের শেষ প্রান্তে একটি ২ তলা বাড়ি থাকবে ,টোটাল ৬/৭ ঘর থাকবে । ৩ টা রুম IT lab ও জিমনেশিয়াম ।
কিছুটা নিকটেই কৃষি খামার । বাড়ির ঠিক পাশে পাখিদের অভায়াশ্রম গ্রিনহাউজ ।

যেহেতু মাঝে মাঝেই ঢাকা আসা লাগবে সবকিছুই থাকবে প্রযুক্তি ভিত্তিক । প্রযুক্তিভিত্তিক বেশ কিছু বিজনেস গড়ে উঠবে । আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স নিয়ে নিবিড় গবেষণা থাকবে ল্যাবের বড় অংশের কাজ ।

একটি নৈতিকভাবে পরিমার্জিত সবচেয়ে অগ্রসর কিছু মানুষ দেখবে পৃথিবী ।